নভেম্বর ২৫, ২০২২ ৮:৫৮ অপরাহ্ণ

শ্বাসকষ্টের ঘরোয়া দাওয়াইগুলো

পরিস্থিতি, ফুসফুস, কন্ডিশন, অ্যালার্জি , ডাক্তার, অ্যাজমা, শ্বাসকষ্ট,
শ্বাসকষ্ট। ছবি : সংগৃহীত

ঢাকা (২৩ নভেম্বর) : বায়ু দূষণের দিক থেকে সবচেয়ে বেশি এগিয়ে আছে ঢাকা শহর। এই পরিস্থিতিতে ঢাকাবাসীদের যে ফুসফুসের রোগ বাড়বেই, তাতে নতুন কথা কী! আর হচ্ছেও তেমনটা। এ ছাড়া বিশ্ব জলবায়ু পরিবর্তন এবং বায়ুমণ্ডলে কার্বন ডাই অক্সাইড বেড়ে চলার ফলে দেশব্যাপীও গত কয়েক দশকে বাচ্চা থেকে বয়স্ক, সব বয়সিদের মধ্যেই শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যা চোখে পড়ার মতো বেড়েছে। বায়ু দূষণ ছাড়াও আরও নানা কারণে এই রোগ হতে পারে বলে জানিয়েছেন ডাক্তাররা। যেমন ফুসফুসে সংক্রমণ, ওয়েদার কন্ডিশন, খাবার এবং অ্যালার্জি প্রভৃতি।

বেশ কিছু গবেষণায় দেখা গেছে আমাদের রান্না ঘরে থাকা সাধারণ কিছু খাবার চটজলদি অ্যাজমা বা শ্বাসকষ্ট কমাতে দারুন কাজে আসে। এবার থেকে যখনই দেখবেন শ্বাস নিতে কষ্ট হচ্ছে, তখনই এখানে আলেচিত খাবারগুলির কোনওটি সঙ্গে সঙ্গে খেয়ে নেবেন। দেখবেন সঙ্গে সঙ্গে ফল মিলবে।

আসুন জেনে নেওয়া যাক এক্ষেত্রে যে যে খাবরগুলি বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে, সেগুলো কী…

১. সরষের তেল
একেবারে ঠিক শুনেছেন! শ্বাসকষ্ট কমাতে বাস্তবিকই সরষের তেল দারুন কাজে আসে। আসলে এই তেলটি রেসপিরেটারি প্যাসেজকে খুলে দেয়। ফলে শ্বাস নিতে কোনও কষ্টই হয় না। তাই এবার থেকে অ্যাজমার অ্যাটাক হলেই অল্প করে সরষের তেল গরম করে নেবেন। তারপর সেটি অল্প ঠাণ্ডা করে বুকে-পিঠে ভাল করে মালিশ করতে থাকবেন। এমনটা করলেই ধীরে ধীরে লক্ষণ কমে যেতে শুরু করবে। সঙ্গে কমবে কষ্টও।

২. আদা
গবেষণায় দেখা গেছে এই প্রাকৃতিক উপাদানটির শরীরে থাকা বেশ কিছু উপকারি উপাদান শ্বাসনালীর প্রদাহ কমিয়ে অক্সিজেনের প্রবেশ যাতে ঠিক মতো হয়, সেদিকে খেয়াল রাখে। ফলে স্বাভাবিকভাবেই শ্বাসকষ্ট কমতে শুরু করে। এক্ষেত্রে সম পরিমাণে আদার রস, বেদানার রস এবং মধু মিশিয়ে একটা মিশ্রন তৈরি করতে হবে। এই মিশ্রনটি দিনে ২-৩ বার খেলে দেখবেন দারুন উপকার মিলবে।

৩.রসুন
হাফ কাপ দুধে পরিমাণ মতো রসুন ফেলে ভাল করে দুধটা ফোটান। তারপর হলকা ঠাণ্ডা করে দুধটা খেয়ে ফেলুন। এই পানীয়টা খাওয়ার পর দেখবেন কষ্ট কমতে সময় লাগবে না। আসলে ফুসফুস যাতে ঠিক মতো কাজ করতে পারে, সেদিকে রসুন নজর রাখে। ফলে সমস্যা কমতে সময়ই লাগে না।

.৪. ডুমুর
এতে উপস্থিত একাধিক উপকারি উপাদান ফুসফুসের কর্মক্ষমতা বাড়াতে বিশেষ ভূমিকা নেয়। আর একবার ফুসফুস ঠিক মতো কাজ শুরু করে দিলে শ্বাস-প্রশ্বাসও স্বাভাবিকভাবে হতে শুরু করে। ফলে শ্বাসকষ্ট দূরে পালায়। এখন প্রশ্ন হল এমন পরিস্থিতিতে ডুমুরকে কাজে লাগাবেন কিভাবে? প্রথমে তিনটি ডুমুরকে সারা রাত পানিতে ভিজিয়ে রাখুন। সকালবেলা খালি পেটে পানি এবং ডুমুর তিনটি খেয়ে ফেলুন। ব্যাস তাহলেই কেল্লাফতে!

৫. কফি
কানকে বিশ্বাস করতে পারছেন না, তাই তো? তবে সত্যিই অ্যাজমার প্রকোপ কমাতে কফি দারুন কাজে আসে। কারণ গরম গরম এক পেয়ালা কফি খেলে শ্বাসনালী খুলে যায়। ফলে অক্সিজেন খুব সহজেই ফুসফুসের অন্দরে প্রবেশ করে যায়। প্রসঙ্গত, এক্ষেত্রে কফি যত কড়া হবে, তত উপকার পাবেন। তাই এবার থেকে শ্বাস নিতে সামান্য অসুবিধা হলেই কফি খেয়ে নেবেন। দেখবেন উপকার মিলবে। তবে দিনে ৩ কাপের বেশি কফি কিন্তু ভুলেও খাবেন না। কারণ এই পানীয়টি যতটা উপকারি, বেশি মাত্রায় খেলে কিন্তু ততটাই শরীরের পক্ষে ক্ষতিকর।

৬. মধু
অ্যাজমার চিকিৎসায় মধুর ব্যবহার বহু কাল ধরে হয়ে আসছে। আসলে এই প্রকৃতিক উপাদানটির শরীরে রয়েছে বেশ কিছু উপকারি উপাদান, যা এমন রোগের প্রকোপ কমাতে দারুন কাজে আসে। এক্ষেত্রে মধুর গন্ধ নিলেও অনেকের উপকার হয়। আর যদি এমনটা করে ফল না মেলে। তাহলে দিনে তিনবার, এক গ্লাস করে গরম জলে এক চামচ করে মধু মিশিয়ে পান করলে দারুন উপকার মিলবে।

৭. পেঁয়াজ
এতে রয়েছে প্রচুর মাত্রায় অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি উপাদান, যা শ্বাসনালীর প্রদাহ কমিয়ে অ্যাজমার প্রকোপ কমাতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে।

Facebook
Twitter
WhatsApp
Pinterest
Email
Print

সম্পর্কিত

ওমিক্রন, ভ্যারিয়েন্ট, ধারণা, স্বাস্থ্য সংস্থা, ভ্যারিয়েন্টে গুলোকে

‘ওমিক্রনে’ আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি যাদের

ঢাকা (১৫ ডিসেম্বর): করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্ট ‘ওমিক্রন’ দ্রুতগতিতে ছড়িয়ে পড়ছে বিশ্বে। এরই মধ্যেই ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্ট বিশ্বের ৭৭টি দেশে ছড়িয়েছে। তবে বিশ্বের...

খেত , ফসল, হলুদ, ফুল, কুয়াশা

হলুদ ফুলে মেতে উঠেছে ফসলের খেত

ঢাকা (১৩ ডিসেম্বর): শিশির ভেজা সকালে ঘন কুয়াশার চাদরে মোড়ানো কৃষকের বিস্তৃত মাঠ জুড়ে চোখে পরে সরিষার হলুদ ফুলের সমারোহ। যেন...

নভেম্বর, বিশ্বব্যাপী, পুরুষ, লিঙ্গভিত্তিক, সমতা,

আন্তর্জাতিক পুরুষ দিবস আজ

ঢাকা (১৯ নভেম্বর) : আন্তর্জাতিক পুরুষ দিবস আজ। প্রতি বছর ১৯ নভেম্বর বিশ্বব্যাপী পুরুষদের মধ্যে লিঙ্গভিত্তিক সমতা, বালক ও পুরুষদের...